প্রযুক্তির খবর

এক নজরে দেখে নেই গুগলের ইভেন্ট madebygoogle

October 16, 2016

এক নজরে দেখে নেই গুগলের ইভেন্ট madebygoogle

গুগল তাদের নতুন কিছু প্রোডাক্ট নিয়ে বাজারে আসছে যেগুলোর মধ্যে রয়েছে গুগল তৈরি ফোন পিক্সেল, গুগল হোম, ডে-ড্রিম ভিয়ার হেডসেট, গুগল ওয়াই-ফাই, নতুন ক্রোম ক্যাস্ট, এবং আরো অনেক কিছু। আমাদের দৈনন্দিন ব্যবহার্য প্রযুক্তি গুলোকে আরো সহজ এবং ব্যবহার যোগ্য করে তোলাটা এখন গুগলের কাছে মুখ্য বিষয়। তাই গুগলের এই ধরনের পদক্ষেপ। গুগলকে আমরা চিনি তার জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিনের কারণে। নিমিষের মধ্যে খুঁজে পাচ্ছি আমাদের প্রয়োজনীয় সকল তথ্য। প্রযুক্তির বিকাশের সাথে সাথে তার সাথে যোগ হল জিমেইল, ইউটিউব, আন্ড্রয়েড ফোন, গুগল ফাইবার, ক্রোমবুক (গুগলের ল্যাপটপ), গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট আরো অনেক কিছু। আমরা সবাই কোন না কোন ভাবে এই সব প্রযুক্তির সাথে মিশে গিয়েছি অনেকাংশে। এগুলো ছাড়া আমাদের প্রতিদিনের প্রয়োজন মিটাতে হিমশিম খেতে হয় তা আমরা ভাল ভাবে টের পাচ্ছি। এতো এতো টেকনোলোজির মাঝে গুগল যে আমাদের জীবন যাত্রা সহজ করতে তুলছে তার ব্যাপারে কি আমাদের ধারনা আছে?

11 বছর আগের কথা, Andy Rubin এবং Rich Miner মিলে তৈরি করে একটি মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম যাকে আমরা চিনি এন্ড্রয়েড নামে। গুগল পরবর্তীতে এই অপারেটিং সিস্টেমকে কিনে নেয় এবং আরো উন্নত করতে শুরু করে। গুগল প্রতিবার কোন না কোন ফোনের মাধ্যমে তাদের এই অপারেটিং সিস্টেমটি ব্যবহারকারীদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করেছে। কখন LG এর সাথে আবার কখন Samsung এর সাথে আবার কখন HTC, Huawai, Motorola এর সাথে। বিগত 6 বছর ধরে সেই সব ফোন গুলোকে আমরা চিনেছিলাম নেক্সাস নামে। কিন্তু এইবার গুগল নিজের তৈরি করা ফোন Pixel দিয়ে সবার কাছে তাদের অপারেটিং সিস্টেমটি পৌঁছে দিতে চাচ্ছে।

গুগলের তৈরি প্রথম ফোন Pixel এর প্রোমো ভিডিও

গুগল ফোনের নতুন সিরিজ গুগল পিক্সেল

বিভিন্ন নিউজে কথা বার্তা চলছিল যে গুগল তাদের নতুন ফোন বাজারে নিয়ে আসার ব্যাপারে চিন্তা ভাবনা করছে। অবশেষে সব প্রশ্নের উত্তর পাওয়া গেল এই ইভেন্টের মধ্য দিয়ে। গুগল 2 টি মডেলের ফোন বের করতে যাচ্ছে যার মধ্যে একটি হচ্ছে Pixel এবং আরেকটি Pixel XL । ফোন ২টিতে ব্যবহার করা হয়েছে 5.0 ইঞ্চি ফুল HD এমলেড ডিসপ্লে এবং 5.5 ইঞ্চি কোয়াড HD এমলেড ডিসপ্লে। প্রটেকশন হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে 2.5D Corning® Gorilla® Glass 4। অ্যালুমিনিয়াম উনি-বডির এই ফোন গুলো ডিজাইন এবং পলিশ গ্লাস ফিনিশিং সুন্দর ছিল। ফোন গুলো ব্যবহার করা হয়েছে Snapdragon 821 এর কোয়াড কোর প্রসেসর (2x 2.15Ghz/2x 1.6Ghz), 4 জিবি LPDDR4 র‍্যাম। ইন্টারনাল স্টোরেজ হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে 32 জিবি এবং 128 জিবি মেমোরি। আরো রয়েছে ফিঙ্গার প্রিন্ট সেন্সর, 3.5 হেড-ফোন জ্যাক, USB Type-C (18W Charging), BlueTooth 4.2। 2 টি ফোন 2770 mAh এবং 3450mAh ব্যাটারির ক্ষমতা সম্পন্ন। এই ফোনটি পাওয়া যাচ্ছে 3 টি কালারে। Quite Black, Very Silver, Really Blue (Limited Edition)। এই ফোন গুলোর 32 জিবির ভার্সন গুলোর দাম ধরা হয়েছে 649 ডলার এবং 769 ডলার। 128 জিবি ভার্সন গুলোর ক্ষেত্রে দাম ধরা হয়েছে 749 ডলার এবং 869 ডলার। প্রি-অর্ডার করতে চাইলে করতে পারবেন এখান থেকে Only – UK, AU, Canada, Germany, UK, (India – after 13 Oct 2016)

কিছু দিন আগে আসা নতুন অপারেটিং সিস্টেম নুগেটের 7.1 ভার্সন থাকছে এর ভিতর। নেক্সাসের মতই এই ফোন গুলোর অপারেটিং সিস্টেম আপডেট সবার আগেই পাবে, তবে একটু ভিন্ন ভাবে। এই ফোন নিজ থেকেই নতুন আপডেট ডাউনলোড করে রাখবে আপনার মোবাইলে পরবর্তীতে ফোন রি-স্টার্ট করার মাধ্যমে উপভোগ করতে পারবেন নতুন আপডেট ভার্সন। এই প্রথম গুগল ব্র্যান্ডকে ফোকাস করে বানানো স্মার্ট এবং ক্লিন ডিজাইনের এই ফোন গুগল বলছে গুগল তৈরি করেছে। তবে গুগল HTC এর সাথে চুক্তি করে এই ফোন তৈরি করেছে বলে জানা গিয়েছে। দেখতে অনেকটা অ্যাপেলের আইফোনের মত। ইতিমধ্যে আইফোনে ক্যামেরা বাম্প থাকা এবং হেডফোন জ্যাক না থাকাকে কটাক্ষ করলেও দেখার বিষয় গুগলের ফোন গুলো ইউজারের মন কেড়ে নিতে পারছে কিনা।

নতুন হার্ডওয়্যার

এই ফোন গুলোতে দেওয়া হয়েছে Snapdragon 821 কোয়াড কোর প্রসেসর, যা Snapdragon এর নতুন ফ্ল্যাগ শিপ প্রসেসর। প্রসেসরটি পূর্বের প্রসেসর থেকে 10 শতাংশ বেশি কর্মদক্ষতা সম্পূর্ণ। এর ফলে অ্যাপ্লিকেশান ওপেন করতে পারবে দ্রুত। জিপিউ পারফর্মেন্স 5 শতাংশ বেশি থাকার কারণে গেমিং পারফর্মেন্স হবে বেশ চমৎকার। সাথে লেজার ফোকাস এবং ইমেজ প্রোসেসিং আরো ভাল কর্মদক্ষতা সম্পূর্ণ করা হয়েছে যাতে ভাল ক্যামেরা পারফর্মেন্স পাওয়ার জন্য। যারা ভার্চুয়াল রিয়্যালিটিকে বেশি প্রাধান্য দিচ্ছেন তাদের জন্য হবে অতি মজাদার সাপোর্ট। প্রসেসরে ভিতর থাকা VR সাপোর্টের কারণে আপনার নিয়ে যাবে ভার্চুয়াল রিয়্যালিটির অন্য জগতে।

গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট

গুগল বুঝতে পারছে ব্যবহারকারীরা দিন দিন নির্ভরশীল হয়ে পড়ছে ফোনের উপর। টুকিটাকি নোট জমা রাখা, বিভিন্ন ইভেন্ট তৈরি করা আরো অনেক কিছুই এখন মোবাইলের মাধ্যমে করা হয়। এই সব ব্যাপার গুলোকে একত্র করে আরো একধাপ এগিয়ে নিয়ে যেতে গুগল কিছু দিন আগ থেকেই কাজ করছিল গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টের উপর। তার উপর ভিত্তি করে গুগল একটি অ্যাপ প্রকাশ করেছে যার নাম Google Allo যা এই ফোনের ভিতরেই দেওয়া থাকবে। গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট আপনার পার্সোনাল অ্যাসিস্ট্যান্টের মত কাজ করবে। কোন কথোপকথনের মাঝে কোন রেস্তোরাতে যাওয়ার কথা চলছে, এখন কোন রেস্তোরাতে গেলে ভাল হবে তা খুঁজতে সাহায্য করবে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট। কারো সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন ক্রমাগত প্রশ্ন করে করে তার সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন ভয়েস কমান্ড করে। এছাড়াও কল করা, ম্যাসেজ পাঠানো, টিকিট বা রেস্তোরার সিট বুকিং সব কিছুই করা যাবে এই ফিচারের মাধ্যমে।

ক্যামেরা

গুরুত্বপূর্ণ ফিচারের মধ্যে ছিল ক্যামেরা। পিক্সেলের ক্যামেরাকে এখন পর্যন্ত বেষ্ট ক্যামেরা হিসেবে ধরা হচ্ছে। DXOMARK Mobile রেটিং এর স্কোর এসেছে 89 যা এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ স্কোর। কিছু আগে বের হওয়া আইফোন 7 থেকে 3 পয়েন্ট এগিয়ে এবং পূর্বে বের হওয়া নেক্সাস থেকে 5 পয়েন্ট এগিয়ে আছে এই ফোনের ক্যামেরার স্কোর। এতে ব্যবহার করা হয়েছে 12.3 মেগাপিক্সেল রেয়ার ক্যামেরা, F/2.0 এপ্যাচার, 1.55 মাইক্রন পিক্সেল। কিছু মজাদার ফিচার রয়েছে যা আপনাদের ছবি তোলার শখ গুলো আরো বেশ আকর্ষণীয় করে তুলবে। Smartburst ফিচার burst মুডে তোলা অনেক গুলো ছবির মাঝে ক্লিয়ার এবং সঠিক ছবি তুলতে সাহায্য করবে। HDR+ স্মার্ট হয়েছে অনেক, যে কোন মুহূর্তে কালারফুল ছবি তুলা এখন বা হাতের খেলা। গুগল দাবি করছে এতে রয়েছে 0 সাটার ল্যাগ, 2x ফাস্টার ইমেজ প্রোসেসিং যা দ্রুত এবং গুরুত্বপূর্ণ সময়ের ছবি গুলো চটজলদি তুলতে সাহায্য করবে। এর অপটিক্যাল ইমেজ স্টেবিলাইজেশন ভিডিও রেকর্ড করার মজা আরও বাড়িয়ে দিবে। ভিডিও রেকর্ড করার সময় হাতের ঝাঁকুনির কারণে ভিডিও করার মজাটাই নষ্ট হয়ে যায়। এখন আর সেই মজা আর নষ্ট হবে না পিক্সেলের কারণে। বলতে গেলে ডিজিটাল ক্যামেরার স্বাদ থাকবে এখন আপনার পকেটে।

আনলিমিটেড ছবি এবং ভিডিও সংরক্ষণ

সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ ফিচার বলতে গেলে ছিল গুগল ফটো। এই ফোনে তোলা সকল ছবি ও ভিডিও সংরক্ষণ করে রাখবে গুগল ফটো, যেখানে অক্ষুণ্ণ থাকবে সব রেজুলেশন এবং ফাইল সাইজ। এমনকি 4k ভিডিও পর্যন্ত সংরক্ষণ করে রাখবে। এতো কিছু সংরক্ষণ করার পরেও ফুরবে না কোন মেমোরি। গুগল শুধু মাত্র এই ফোন ব্যবহারকারীদের জন্য দিচ্ছে আনলিমিটেড ছবি এবং ভিডিও সংরক্ষণ করার সুবিধা। কখন মেমোরি ফুরিয়ে যাওয়া নিয়ে চিন্তা করতে হবে না আপনাকে, গুগল সব কিছু জমা করে রাখবে আপনার গুগলের ক্লাউড একাউন্টে।

ফাস্ট চার্জ

প্রতিনিয়ত মোবাইল চার্জ নিয়ে আমাদের অনেক সমস্যায় পড়তে হয়। এই ব্যস্ততার মাঝে ফোন চার্জ দেওয়ার সময় অনেকের হয়ে উঠে না। এই সব ব্যস্ত ডাক্তারদের জন্য পিক্সেলের রয়েছে উপকারী এবং গুরুত্বপূর্ণ ফিচার। মাত্র ১৫ মিনিটের চার্জে আপনার ফোন সচল থাকবে ৭ ঘণ্টা।

অন্যান্য ফিচার

  • ফোনের সাথে থাকছে Google Duo অ্যাপ। এই অ্যাপ ব্যবহার করে ভিডিও কলের মাধ্যমে কথা বলা যাবে। যেখানে কল ধরার আগে দেখা যাবে কে ভিডিও কল দিয়েছে এবং সে কি করছে।
  • ফোনের সেটিংসের ভিতর থাকছে কাস্টমার সাপোর্ট যার মাধ্যমে যে কোন সমস্যার জন্য সাহায্য চাইতে পারবেন সরাসরি।
  • আমরা যখন মোবাইল পরিবর্তন করি তখন সব থেকে কষ্টের কাজ হচ্ছে এক মোবাইলের ইনফর্মেশন অন্য মোবাইলে নেওয়া। কিন্তু এই ফোনে খুব সহজে কোন রকম সফটওয়্যার ইন্সটল বা কম্পিউটার ছাড়াই তথ্য নিতে পারবেন।

ফিচার গুলোর মধ্যে ক্যামেরা, আনলিমিটেড ছবি এবং ভিডিও সংরক্ষণ করার ফিচার গুলো ছিল বেশ ভাল, এর পাশাপাশি নতুন কনফিগারেশন অনেকটা প্রভাব ফেলতে পারে এই ফোন ক্রয় করার ব্যাপারে। খারাপ দিক গুলোকে নিয়ে যদি কথা বলতে হয় তাহলে গুটি কয়েক কথা বলা ছাড়া কিছু থাকছে না। গুগল অ্যাপেলের সাথে টক্কর দিতে দাম গুলো রেখেছে অ্যাপেলের মতই যা নিয়ে অনেকে আশাহত হয়েছেন। যেহেতু অ্যাপেলর সাথে টক্কর দেওয়া হচ্ছে সেখানে পিছিয়ে আছে কিছু ফিচারের কারনে, তার মধ্যে রয়েছে ওয়াটার প্রুভ এবং স্টেরিও স্পীকার সিস্টেম। এই ফিচার গুলো পিক্সেল ফোন ক্রয় করার সিদ্ধান্তকে পরিবর্তন করবে বলে আশা করা হচ্ছে না। তারপরেও ব্যবহারকারীরা তাদের পছন্দ এবং ফিচারের কথা গুলো মাপকাঠির মধ্যে রেখে ফোন ক্রয় করার কথা বিবেচনা করবেন।

গুগল হোম

স্মার্ট অ্যাসিস্ট্যান্ট কি আপনার মোবাইলে থাকলে হবে, ঘরের ভিতরও একটা স্মার্ট অ্যাসিস্ট্যান্ট না হলে হয় নাকি। সেই কথা চিন্তা করে ঘরের ভিতরের জন্য একটি ডিভাইস বানালো গুগল। গুগল অ্যাসিস্ট্যান্টের মাধ্যমে সকল ফিচার গুলো উপভোগ করতে পারবেন । রান্না করতে বসে ভুলে গেছেন কোন রেসিপি, বাসার বাতি গুলো নিয়ন্ত্রণ করতে চান আপনার ভয়েজ দিয়ে, এই ধরনের অনেক কাজ করতে হেল্প করবে গুগল হোম। বাসার অনুপাতের কথা চিন্তা করে সিঙ্গেল প্যাক এবং লার্জ 3 প্যাক 2টি ক্যাটাগরিতে এই প্রোডাক্টটি পাওয়া যাচ্ছে যার জন্য আপনাকে গুনতে হবে 129 ডলার এবং 299 ডলার।

ডেড্রিম ভিয়ার হেডসেট

ডেড্রিম ভিয়ারের নতুন ডিজাইন এবং সফট ফ্যাব্রিকের কারণে দেখতে সুন্দর এবং ব্যবহার করতে আরামদায়ক হবে ব্যবহার কারীদের কাছে। কোন রকম তারের ঝামেলা ছাড়াই এই ভিয়ার হেডসেটের ওজন মাত্র 220 গ্রাম। হালকা ওজন হওয়াতে এবং পিক্সেলের ভিয়ার সাপোর্ট টেকনোলজির কারণে এই ডেড্রিম হেডসেটে ভার্চুয়াল রিয়েলিটির এক অনন্য মজা উপভোগ করতে পারবেন। গুগল স্ট্রিট ভিউ, ইউটিউবের 360 ডিগ্রী ভিডিও, ভার্চুয়াল রিয়্যালিটির গেম গুলো মজা উপভোগ করতে আপনাকে গুলতে হবে 79 ডলার।

ক্রোমক্যাস্ট আল্ট্রা

ক্রোমক্যাস্ট ব্যাপক সাড়া পেয়েছে ব্যবহার কারীদের কাছে। আপনার টেলিভিশনকে আরো স্মার্ট করে তুলতে ক্রোমক্যাস্টের তুলনা হয় না। মোবাইলে বসে কোন মুভি দেখছেন বা ইউটিউবে ভিডিও দেখছেন এখন ঘরের সবার সাথে মিলে তা দেখতে চান আপনার টেলিভিশনে? মুহূর্তে মধ্যে ক্রোমক্যাস্টের কারণে মোবাইল থেকে টেলিভিশনে চলে যেতে পারবেন। এছাড়াও গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট ব্যবহার করে কোন মুভি বা মিউজিক ভিডিও দেখতে সাহায্য করবে এই গুগল ক্রোমক্যাস্ট। এই ফিচার তো আগে থেকে ছিল তাহলে নতুন কি। টেকনোলজির এই দুরন্ত গতিতে টেলিভিশনের রেজুলেশনও বড় হচ্ছে তাই ক্রোমক্যাস্টের সাপোর্ট এবার বড় হল 4k ভিডিও স্টিমিং সাপোর্টের মাধ্যমে। সাথে থাকছে এইবার ইথারনেট পোর্ট যাতে করে 4k ভিডিও স্টিমিং এর ক্ষেত্রে কোন রকম ঝামেলা করতে না পারে। এই ডিভাইসটির জন্য আপনাকে গুনতে হবে 69 ডলার যা নভেম্বর মাস থেকে অর্ডার করতে পারবেন।

গুগল ওয়াইফাই

সব কিছু তো পাওয়া গেল এখন বাকি রইলো সবাইকে এক সুতোয় গাথা। ইন্টারনেটই আমাদের সবাইকে এই সুতোয় বাধতে সাহায্য করবে। সেই সুতোতে বাধতে প্রয়োজন একটি ওয়াইফাই রাউটার। গতবছর অনহাবের সাথে পার্টনারশিপ করেছিল এই রাউটার তৈরি করতে। মাল্টিপল নেটওয়ার্কের সুবিধা নিয়ে রাউটার গুলো ঘরের কোনায় কোনায় পৌঁছে দিবে ইন্টারনেট। ঘরের সমস্ত ডিভাইস গুলো নিয়ন্ত্রণ সুবিধার পাশাপাশি দেখা শুনা করতে পারবেন বাচ্চাদের ইন্টারনেট ব্যবহার করার সময়সীমা। ডিভাইস গুলো পাওয়া যাচ্ছে সিঙ্গেল এবং ট্রিপল প্যাকে। সিঙ্গেল প্যাকের জন্য গুনতে হবে 129 ডলার এবং ত্রিপল প্যাকের জন্য গুনতে হবে 299 ডলার যা নভেম্বর মাস থেকে অর্ডার করতে পারবেন।

গুগল আমাদের ব্যবহার্য প্রযুক্তির দিকে দিনদিন বেশি নজর দিচ্ছে। তবে দাম গুলো সাধ্যের মধ্যে রাখার চেষ্টা করলে অনেকের কাছে পৌঁছে যেতে পারে গুগলের এই সকল পণ্য। এখন শুধু দেখার বিষয় ব্যবহারকারীরা তাদের দৈনন্দিন প্রয়োজন মিটাতে পারছেন এই সকল পণ্যের মাধ্যমে? আপনাদের কাছে কেমন লেগেছে আমাদের তুলে ধরা বিষয় গুলো তা জানাতে ভুলবেন না। আমাদের লেখা গুলো ভাল লাগলে শেয়ার করতে পারেন। প্রযুক্তির ব্যাপারে আরো জানতে থাকুন আমাদের সাথে। যে কোন প্রকার আপডেট পেতে চোখ রাখুন আমাদের ফেইসবুক পেইজে। ভিডিও সিরিজ গুলো দেখতে পারবেন ফেইসবুক এবং ইউটিউবে। প্রযুক্তি নিয়ে আলোচনা করতে চাইলে চলে আসুন আমাদের কমিউনিটিতে। আবার দেখা হবে নতুন বিষয় নিয়ে, তত দিন ভাল থাকুন

ইমেজ ক্রেডিট – গুগল ইভেন্ট ভিডিও

প্রযুক্তি নিয়ে আলোচনা করার জন্য রয়েছে

আমাদের কমিউনিটি

প্রযুক্তি নিয়ে আমরা আলোচনা করতে চাই সব সময়। তাই আমাদের কমিউনিটিতে আপনাদের সবাইকে আমন্ত্রণ প্রযুক্তির সকল বিষয় নিয়ে আলোচনা করার জন্য। আপনাদের যে কোন ধরনের সমস্যা, অজানা বিষয় গুলো নিয়ে আমরা আলোচনা করতে প্রস্তুত সব সময়

কমেন্ট করুন

Your email address will not be published. Required fields are marked *